ওয়ালটন মোবাইল কেমন

ওয়ালটন মোবাইল কেমন 2023

ওয়ালটন মোবাইল কেমন 2023

ওয়ালটন মোবাইল কেমন 2023। বাংলাদেশের বাজারে প্রতিনিয়ত ওয়ালটন নতুন নতুন মোবাইল ফোন নিয়ে আসছে। বিস্তারিত পোস্টটি পড়ুন

বাংলাদেশের বাজারে প্রতিনিয়ত ওয়ালটন নতুন নতুন মোবাইল ফোন নিয়ে আসছে। এবং দিনে দিনে ওয়ালটন কোম্পানি বাংলাদেশে খুব একটা ভালো স্থান অর্জন করে নিচ্ছে। walton ফোন নিয়ে অনেকেরই অনেক নানা মন্তব্য রয়েছে। যেমন ওয়ালটন ফোন ভালো কেমন। walton ফোনের খারাপ দিকটা কেমন। আরো অনেক কিছু। 

অনেকেই ওয়ালটন ফোন কিনেন আবার অনেকেই কিনতে চান না। তাই আজকে আমাদের এই পোস্ট থেকে আপনি জানতে পারবেন ওয়ালটন মোবাইল কেমন। walton মোবাইল আপনার জন্য কিনা উচিত কি না । আমরা কি আসলেই ওয়ালটন মোবাইল কিনলে ভালোভাবে চালাতে পারব কি না । এই ধরনের সকল প্রশ্নের উত্তর আমাদের এই পোস্ট থেকে আপনি পেয়ে যাবেন।

ওয়ালটন মোবাইল কেমন কোয়ালিটি ২০২৩

আজ থেকে কিছু বছর আগে যদি আমরা ফিরে তাকাই, তাহলে আমরা দেখতে পারবো ওয়ালটন অনেক লো বাজেটের মধ্যে মোবাইল লঞ্চ করত। তাদের টার্গেট ছিল অল্প বাজেটের মধ্যে গ্রাহকরা তাদের ফোন চালাতে পারবে। এই অল্প বাজেটের মধ্যে মোবাইল মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে গিয়ে, অনেক ঘাটতি ওয়ালটনের পোহাতে হয়। যেমন ডিজাইনে গাড়তে হতো, চিপসেট তেমন বেশি ভালো হতো না, প্রসেসরের ঘাটতি তৈরি হতো, তারা আন্তর্জাতিক প্রফেসর সবসময় দিতে পারতো না। কারণ তাদের বাজেটে এরকম দেওয়া সম্ভব ছিল না। 

তারা চিন্তা করেছিল যাতে অল্প টাকার মধ্যে মানুষে মোবাইল ফোন ইউজ করতে পারে। সে উদ্দেশ্যে যখন মোবাইল ফোন তৈরি করতো। তারা ডিজাইন টা আসলে এত ভালোভাবে করতে পারত না। আন্তর্জাতিক অন্য কোম্পানির সাথে তাল মিলাতে পারতো না। সেই সাথে প্রসেসর চিপসের রেম রোম আন্তর্জাতিক কোম্পানির সাথে দিতে পারত না। কারন আপনার যেহেতু বাজেট কম খুব অল্প টাকার মধ্যেই আপনার হাতে ফোন দিতে হচ্ছে তাদের। সেজন্য আসলে সবকিছু মেনটেইন করতে পারত না।

ওয়ালটন ফোন ভালো না খারাপ ২০২৩ ?।

ওয়ালটন ফোন ভালো না খারাপ ২০২৩ ?।

এখন ওয়ালটন অনেক উন্নত হয়েছে। এখন এর ওয়ালটন ফোন যদি আমরা দেখি, আগের তুলনায় অনেক অনেক ভালো। বর্তমান সময়ে ওয়ালটন ভালো একটি অবস্থান তৈরি করে নিয়েছে। এবং আন্তর্জাতিক বাজারের সাথে তাল মিলিয়ে তারা ফোন রিলিজ করছে। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের রেলমি ভিভো অপু samsung এ ধরনের অনেক আন্তর্জাতিক বাজারের সাথে তারা তাল মিলিয়ে মোবাইল ফোন রিলিজ করে যাচ্ছে। যেহেতু আগের সময় গ্রাহকদের কাছে অল্প বাজেটের মধ্যে মোবাইল ফোন দিত। 

সে ক্ষেত্রে অনেক সমস্যাই দেখা দিত। যেহেতু বাজেট কম এবং সে বাজেটে বিল্ড করতে গিয়ে অনেক সমস্যাই তৈরি হতো। অন্যান্য কোম্পানির যেমন প্রসেসর , ওয়ালটন এখন সেম প্রসেসর ব্যবহার করছে। এবং বর্তমান সময়ে অনেক ফোন গুলোতেই তারা মিডিয়াটেক প্রসেসর ব্যবহার করছে। এবং ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। এক সময় ওয়ালটন ফোনগুলোকে মানুষ সেকেন্ড ফোন হিসেবে রাখতো। কিন্তু অনেকেই এখন বর্তমানে মেইন ফোন হিসেবে সাথে রাখছে। ইদানিং ওয়ালটন বেস্ট কিছু মোবাইল ফোন লঞ্চ করেছে।

কম দামে ওয়ালটন মোবাইল কেনা ভালো ২০২৩ ?

কম দামে ওয়ালটন মোবাইল কেনা ভালো ২০২৩ ?।

এখন থেকে অনেক আগের ফোন গুলো যদি আপনারা দেখেন। তার চাইতে অনেক হাই কোয়ালিটির মোবাইল ফোন ওয়ালটন তৈরি করছে। আগের ফোনগুলো যেকোনো সময় হ্যাং করতো যেকোনো ব্রাউজারে ব্রাউজিং করতে গেলে হঠাৎ করে বের হয়ে যেত মোবাইল গরম হয়ে যেত। আরো অনেক বিভিন্ন সমস্যা ছিল। কিন্তু বর্তমান সময়ে তাদের কাস্টমাইজ অনেক দুর্দান্ত । অনেক ধরনের ফেসিলিটি পাওয়া যাচ্ছে । আগের সমস্যাগুলো ও বর্তমান মোবাইল গুলোতে একদমই পাওয়া যায় না। 

যেমন আপনি একটি অ্যাপস এ ঢুকলেন অ্যাপস থেকে হঠাৎ করে বের হয়ে আসলো। হঠাৎ করেই মোবাইল ফোনটি বন্ধ হয়ে গেল। অথবা মোবাইল ফোনটি হ্যাং করে গেল। কিন্তু এই সমস্যাগুলো বর্তমান সময়ে একদমই নেই। অন্যান্য কোম্পানির ফোন গুলো যেভাবে আপনি ইউজ করছেন ওয়ালটন মোবাইল ও সেইম ভাবে ইউজ করা যাচ্ছে। তার মানে তাদের ফোনগুলো ধীরে ধীরে অনেক আপডেট করছে। তাদের টেকনোলজি আপডেট করছে। এবং তাদের কাছ থেকে বেটার সার্ভিসও পাওয়া যাচ্ছে।

ওয়ালটন মোবাইল কিনতে চাই..কেমন হবে ২০২৩ ?

তো যারা ওয়ালটন সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা নিয়ে বসে আছেন , যে আগের ওয়ালটন আর এখনকার ওয়ালটন কিন্তু এক না। আগে যারা ওয়ালটন ইউজ করেছেন তারা অনেকেই ব্যাড রিভিউ দিয়েছেন ওয়ালটনের সম্পর্কে। কিন্তু বর্তমান সময়ে যারা ইউজ করছেন তারা অনেকটাই ভালো রেটিং দিচ্ছে। ওয়ালটন আগের চাইতে অনেক ভালো। 

তারা মোটামুটি অনেক ভালোভাবেই এগিয়ে যাচ্ছে। এবং সামনে আরো এগিয়ে যাবে। যেহেতু বর্তমান সময়ে অনেক নতুন নতুন কোম্পানি আসছে, তারাও কিন্তু বাজারে টিকে থাকছে। ওয়ালটন সেই হিসেবে অনেক পুরাতন একটি কোম্পানি। বাংলাদেশের একটি নিজস্ব কোম্পানি নিজস্ব টেকনোলজি নিজস্ব প্রযুক্তি। তাই বাংলাদেশের এই কোম্পানি কে আমাদের সাপোর্ট দেওয়া অবশ্যই প্রয়োজন।

ওয়ালটন মোবাইল ২০২৩।

ওয়ালটন মোবাইল ২০২৩।

সেজন্য ওয়ালটন ও যারা কিনতে চান । তারা অবশ্যই ওয়ালটন কিনতে পারেন। যদি আপনি বেশি প্রাইজ এর মধ্যে কিনতে না চান, তাহলে সমস্যা নেই ৬ থেকে ১২০০০ এবং ১৫ হাজারের মধ্যেও মোবাইল ফোন কিনতে পারেন। তো আশা করি এই পোস্ট থেকে আপনারা বুঝতে পারছেন ওয়ালটন কিরকম একটি কোম্পানি। 

যদি আপনার ওয়ালটনের কোন পণ্য ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই কিনবেন। আর ওয়ালটন আগের চাইতে অনেক অনেক উন্নত হয়েছে এখন। তাই বেশি দেরি না করে এখনই ওয়ালটনের ফোনগুলো একবার ঘুরে দেখে আসুন তাদের ওয়েবসাইটে এবং ওয়ালটনের যেকোনো শোরুমে গিয়ে। তো সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

আজকের আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url